মসজিদে সেক্রেটারী পদ না পাওয়ায় দান করা মাইক ফেরত নিলো দাতা

বাংলাদেশ

রূপগঞ্জে মসজিদ কমিটিতে সাধারণ সম্পাদক পদ না পাওয়ায় দান করা মাইক ফেরত নিলো দাতা। মাইক খুলে ফেলায় হটাৎ করেই উচ্চ শব্দে মাইকে আযান বন্দ হয়ে গেল কর্ণগোপ জামে মসজিদের। গঠনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে উপজেলার তারাব পৌর সভার কর্ণগোপ গ্রামে।

মসজিদ কমিটি ও এলাকা বাসির সাথে কথা বলে জানাযায়, উপজেলার কর্ণগোপ গ্রামে অবস্থিত কর্ণগোপ কেন্দ্রিয় জামে মসজিদে তিন বছর আগে একটি মাইক দান করেন তৎকালীন মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী ভুইয়া।

সম্প্রতি ১৬/০৪/২০২১ইং তারিখে উক্ত মসজিদে এলাকা বাসির সতস্ফুর্ত অংশগ্রহণে নতুন কমিটি গঠিত হয়। নব গঠিত কমিটিতে তিনি সিনিয়র সহ সভাপতি হিসাবে মনোনীত হন। কিন্তু ওনার আশাতীত সাধারণ সম্পাদক পদ না পাওয়ায় ক্ষিপ্ত হন তিনি ।

এবং ২১/০৫/২০২১ ইং মসজিদ কমিটির সাধারণ সভায় নত’ন কমিটির উক্ত পদ থেখে অভ্যাহতি নেন। পরে মসজিদের ইমাম সাহেব কে ফোন করে তার দান কৃত মাইক খুলে দিয়ে আসতে বলেন। ইমাম সাহেব কমিটিকে জানালে কমিটি মাইক ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় এবং তাকে মাইক ফেরত দিয়ে দেয়।

এতে হটাৎ করেই মাইকে অযান দেওয়া বন্দ হয়ে যায় কর্ণগোপ কেন্দ্রিয় জামে মসজিদের। আযান শুনে মসজিদে আসা মুসুল্লিদের সময় মতো ও জামাতে নামাজে শরিক হওয়া নিয়ে বিরম্বনায় পড়েন অনেকে। নামাজ পড়তে আসা মুসুল্লি সায়েম ভুইয়া বলেন কমিটিতে পছন্দনীয় পদ না পেলে দান ফেরত নেয় এটা প্রথম দেখলাম।

এ বিয়য়ে নব গঠিত মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা জানান, মোহাম্মদ আলী দীর্ঘ ১২ বছর আগে দুই বছর মেয়াদী কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হন । কিন্তু তিনি সরকার দলীয় ওয়ার্ড কমিটির নেতা হওযার কারনে যবর দখল করে মেয়াদ শেষ হলেও ১২ বছরে কোন কমিটি গঠন করতে দেননি।

এবং দীর্ঘ ১২ বছরে কোনও হিসাব এলাকা বাসিকে দেননি। নব গঠিত কমিটিকেও কোনও লিখিত হিসাব দিতে পারেন নি। উল্টো সাধারণ সম্পাদক না হতে পারার কারনে দান করা জিনিস ফিরিূেয় নেন। সভাপতি শফিউদ্দিন প্রধান বলেন, দান করে কেউ কোন জিনিস ফেরৎ নেয় এমন নজির আমি আর কোনও দিন দেখিনি।

তবুও সে ফেরৎ চাইছে যেহেতু আমরা তার জিনিস ফিরিয়ে দিয়েছি। আমরা মাইক খুলে রেখেছি তাকে জানিয়েছি সে যেকোন সময় নিয়ে যাবে। এ ব্যাপারে মোহাম্মদ আলীর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।