থানায় কিশোরীর আকুতি, ‘স্যার আমাকে ছেড়ে দিন, এমন ভুল আর করব না’

বাংলাদেশ

‘আমার ভুলের জন্য আজ আমি আটক হলাম। জীবনে কখনও আর এমন ভুল করব না, স্যার আমাকে ছেড়ে দিন। আমার মান-সম্মান সবই চলে যাবে’- এভাবেই ভৈরব থানা পুলিশের কাছে আকুতি জানিয়েছে গাঁজাসহ আটক হওয়া ১৭ বছর বয়সী কিশোরী রিমা বেগম।

রিমার বাবার নাম সাগর বাদশা। ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আখাউড়া এলাকায় তাদের বাড়ি। দুই কেজি গাঁজাসহ র‍্যাবের হাতে রোববার বিকালে আটক হয়েছে এই কিশোরী। স্থানীয় বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে ভৈরব র‍্যাব ক্যাম্পের সদস্যরা তাকে আটক করে।

পরে রাতে তাকে মাদক বহনের দায়ে র‍্যাব বাদী হয়ে মামলা দিয়ে থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। থানায় দাঁড়িয়ে রিমা পুলিশকে বার বার তাকে ছেড়ে দেওয়ার আকুতি করছিল। জীবনে এমন ভুল আর কখনও করবে না বলেও জানায় সে।

রোববার রাত ১০ টায় ভৈরব থানায় কিশোরী রিমা পুলিশকে বলে, স্যার আমি জানতাম না পুটলায় গাঁজা আছে। আমি ঢাকা যাব একথা শুনে আমার এক খালা পুটলাটি ঢাকা কমলাপুর পৌঁছে দিতে অনুরোধ করেন। একটি মোবাইল নাম্বার আমাকে দেন খালা।

কমলাপুর পৌঁছে ওই মোবাইল নাম্বারে ফোন দিলে কোনো এক ব্যক্তি আসলে পুটলাটি দিয়ে দিতে বলেছিল খালা। বিনিময়ে আমাকে এক হাজার টাকা দেন ঢাকা যাতায়াতের খরচ বাবদ। সরল বিশ্বাসে আমি পুটলাটি নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিলাম।

কিন্তু বাসে ভৈরব আসার পর র‍্যাব গাড়ি তল্লাশি করে পুটলার ভেতর গাঁজা পেয়ে আমাকে আটক করে। আমার উচিত ছিল পুটলাটিতে কী আছে জেনে নেওয়া বা দেখে নেওয়া। ভৈরব থানার এসআই নিপুন বলেন, কিশোরী বয়সে রিমা মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছে।

তার কথা কতটা সত্য বা বাস্তব- তা পুলিশ তো জানে না। আর জানলেও আইনে মানবতার কোনো মূল্য নেই। অপরাধ করে ধরা খেলে সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে প্রমাণিত হলে আইন অনুযায়ী বিচারে শাস্তি পেতেই হবে।