বাবরি মসজিদ ছিল এবং সর্বদা মসজিদই থাকবে: ওয়াইসি

আন্তর্জাতিক

ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদে দীর্ঘ ৭১ বছর ধরে নামাজ আদায় করতে পারেননি মুসল্লিরা। বাবরি মসজিদের স্থানে রামের জন্মভূমি এমন দাবি হিন্দুদের। ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর মুঘল আমলে নির্মিত পাঁচশ বছর পুরানো মসজিদটি ভেঙে ফেলা হয়, এখন সেখানেই শুরু হলো রামমন্দির নির্মাণের কাজ।

সবরকম সমালোচনা উপেক্ষা করে অবশেষে বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দির নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে একদিকে হিন্দুদের মধ্যে উচ্ছ্বাস দেখা গেলেও মুসলিমদের মধ্যে বিরাজ করছে তীব্র বেদনা।

এমন পরিস্থিতির মধ্যে আবারো সেখানে বাবরি মসজিদ নির্মাণের প্রচ্ছন্ন ঘোষণা দিয়েছেন অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড (এআইএমপিএলবি) নেতা ব্যারিস্টার আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। বাবরি মসজিদের স্থানে রাম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন নিয়ে এক প্রতিক্রিয়া তিনি বলেন, বাবরি মসজিদ ছিল এবং সর্বদা মসজিদই থাকবে।

আয়া সোফিয়া আমাদের কাছে একটা বড় উদাহরণ। অন্যায়ভাবে পীড়ন, লজ্জাজনকভাবে ও সংখ্যাগুরুকে তোষণের জন্য বিচারের মাধ্যমে জমি করায়ত্ত করা হলেও তার অবস্থার পরিবর্তন হয় না। মন ভেঙে যাওয়ার মতো কিছু হয়নি। পরিস্থিতি সর্বদা একরকম থাকে না।

বুধবার সকালে মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের জন্য উত্তর প্রদেশ রাজ্যের ফৈজাবাদ জেলার অযোধ্যায় পৌঁছান নরেন্দ্র মোদি। এরপর যান হনুমানগঢ়ী, দর্শন করেন রামলালা। এরপর অংশ নেন ভূমিপূজায়, যার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয় মসজিদের জায়গায় মন্দির নির্মাণের কাজ।