জীবনে প্রথমবারের মতো ভোট দিতে এসে লাশ হলো কিশোর

আন্তর্জাতিক

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভার চতুর্থ দফার নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শনিবার সকালে হামলা-সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে। কোচবিহারের শীতলকুচিতে ভোটের লাইনে দাঁড়াতে গিয়ে হামলার শিকার হয়ে প্রাণ গেল আনন্দ বর্মণ নামে এক কিশোরের। জীবনে প্রথম ভোট দিতে এসেই নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত হলো সদ্য আঠারো পেরনো ওই কিশোর। কিশোরের পরিবারের অভিযোগ, তৃণমূলের সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালিয়েছে।

যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে। এই ঘটনায় একজনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত কিশোর আনন্দ বর্মণ এবং তার পরিবারের লোকজন বিজেপির সমর্থক বলে জানা গেছে। ওই কিশোরের চাচাতো ভাই জানিয়েছেন, পাঠানটুলি শালবাড়ির ২৮৫ নম্বর কেন্দ্রে সকালে ভোট দিতে গিয়েছিলেন তারা। সবে ভোটের লাইনে দাঁড়িয়েছেন।

সেই সময় আচমকাই তৃণমূল এবং বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে ঝামেলা বাধে। এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে দু’পক্ষই। আচমকা এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন ভোটাররা। প্রাণ বাঁচাতে লাইন ভেঙে ছুটতে শুরু করেন। সেই সময় পেছনে থাকা আনন্দের পিঠে গুলি লাগে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তড়িঘড়ি স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।

কিন্তু সেখানে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। তারা জানান, গুলি লাগার পর সঙ্গে সঙ্গেই আনন্দের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তৃণমূলসমর্থিত সন্ত্রাসীদের দিকেই আঙুল তুলেছে আনন্দের পরিবার। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব অবশ্য এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে বলেছেন, এই ঘটনা বিজেপির অন্তদ্বন্দ্বেরই ফল।