মাদ্রাসায় যৌন হয়রানি নিয়ে ‘অত্যন্ত চিন্তিত’ মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষরা

অন্যান্য

বাংলাদেশের উত্তরে জয়পুরহাটে একটি মাদ্রাসায় চারজন শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসাটির শিক্ষককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সম্প্রতি দেশটির আরও কয়েকটি জায়গায় শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার হয়েছেন।

বিভিন্ন মাদ্রাসায় যৌন নিপীড়নের খবর সংবাদমাধ্যমে আসায় বিশ্লেষকরা পরিস্থিতিকে উদ্বেগজনক বলে বর্ণনা করেছেন। মাদ্রাসা শিক্ষা পরিচালনার সাথে সম্পৃক্ত এবং শিক্ষকদের অনেকে বলেছেন, যদিও তারা ঘটনাগুলোকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা হিসাবে দেখেন, কিন্তু এনিয়ে তারা চিন্তিত এবং যৌন নিপীড়ন বন্ধে করণীয় ঠিক করার ব্যাপারে তাদের মধ্যে আলোচনা চলছে।

জয়পুরহাট সদর উপজেলায় একটি নুরানী মাদ্রাসায় চারজন কন্যাশিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ এনে তাদের অভিভাবকরা মামলা দায়ের করেন গত রোববার। সেই মামলায় অভিযুক্ত মাদ্রাসাটির শিক্ষককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। যে মাদ্রাসাগুলোতে শুধু কোরআন পড়ানো হয়, সে ধরণের মাদ্রাসাকে নুরানী মাদ্রাসা বলা হয়।

জয়পুরহাটে এমনই একটি মাদ্রাসার শিক্ষক গ্রেপ্তার হলেন শিশু শিক্ষার্থীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে। জায়পুরহাট সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বা ওসি মো: শাহরিয়ার খান বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের ব্যাপারে তথ্য পাওয়ার পরই তারা অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছেন।

“মোজাহিদপুরে নুরানী মাদ্রাসা বলে একটি মাদ্রাসা আছে। ওখানে স্থানীয় বাচ্চাদের কোরআন শিক্ষা দিতো ভোরবেলা। এই যে কন্যা শিশু যারা শিক্ষার জন্য যায়, তারা ১২, ১৩ বা ১১ বছর বয়সের, এই সুযোগে ঐ শিশুদের যৌন নিপীড়ন করেছে। এই অভিযোগ নিয়ে তাদের মায়েরা আমার কাছে এসেছে।

তখন আমি প্রাথমিকভাবে লোক পাঠিয়ে দেখলাম যে ঘটনাটা সত্য। এ ব্যাপারে মামলাও হযেছে। ঐ শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে কোর্টে সোপর্দ করাও হযেছে।” জয়পুরহাটের ঘটনা ছাড়াও সম্প্রতি দেশের আরও কয়েকটি জায়গায় মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ সংবাদমাধ্যমে খবর হয়েছে।

এরমধ্যে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় একটি মহিলা আবাসিক কওমী মাদ্রাসায় ১৩ বছর বয়সী এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসাটির হোস্টেল সুপারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েকদিন আগে।ঢাকার কাছে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে একটি মাদ্রাসার দু’জন ছাত্রকে বলাৎকার করার অভিযোগে সেই মাদ্রাসার একজন শিক্ষক গ্রেপ্তার হয়েছেন। এই ঘটনাগুলোতে পুলিশ এখন তদন্ত করছে।

সূত্র: বিবিসি