কুরআনের আয়াত পরিবর্তনের রিট খারিজ না হলে মুসলিম বিশ্ব উত্তাল হয়ে উঠবে: বাবুনগরী

অন্যান্য

ভারতে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভী পবিত্র কুরআনের ২৬টি আয়াতের ওপর আপত্তি এনে আয়াতগুলোর পরিবর্তনের আবেদন করেছেন। এ জন্য তিনি ভারতের সুপ্রিমকোর্টে একটি রিট দায়ের করেছেন। রিটের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর শায়খুল হাদীস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

তিনি বলেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে কুরআনের আয়াত পরিবর্তনের এই রিট খারিজ না হলে ভারতের বিরুদ্ধে মুসলিম বিশ্ব উত্তাল হয়ে উঠবে। রোববার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে হেফাজত আমীর বলেন, পবিত্র কুরআন মহান আল্লাহ তায়া’লার পক্ষ থেকে অবতীর্ণ সর্বশেষ ও শ্রেষ্ঠ আসমানী কিতাব। মানব জাতির মুক্তির একমাত্র সংবিধান।

কুরআন আল্লাহ তায়া’লার কালাম। আল্লাহ তায়া’লা নিজেই কিয়ামত অবধি এ কুরআন সংরক্ষণের দায়িত্ব নিয়েছেন। সমস্ত মুসলমানের আকিদা বিশ্বাস, অবতীর্ণ হওয়া থেকে শুরু করে আজকে পর্যন্ত কুরআনের একটি আয়াত এমনকি একটি অক্ষরও পরিবর্তন হয়নি এবং কেয়ামত পর্যন্ত কেউ পরিবর্তন করতে পারবে না। কুরআনে কোনো প্রকারের পরিবর্তন সাধন হওয়ার দাবিদার মুসলমান থাকতে পারে না, তিনি কাফের।

কুরআনের পরিবর্তনের দুঃসাহস দেখানোকে মুসলিম বিশ্বের সাথে যুদ্ধ ঘোষণার শামিল উল্লেখ করে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, ওয়াসিম রিজভী কুরআনের ২৬টি আয়াতের ব্যাপারে আপত্তি করে সেগুলো পরিবর্তনের জন্য ভারতের সুপ্রিমকোর্টে রিট দায়ের করে কার্যত বিশ্বমুসলিমের সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। এই রিট দায়ের করে অমার্জনীয় অপরাধ করেছেন ওই ব্যক্তি। এর মাধ্যমে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা হয়েছে। পবিত্র কুরআনের কোনো আয়াত পরিবর্তনে কোর্টের রিট মুসলমান মেনে নেবে না।

আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীর ব্যক্তিগত সহকারী মাওলানা ইন’আমুল হাসান ফারুকীর পাঠানো এক বিবৃতিতে হেফাজত আমীর মোদি সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, মোদি সরকারের ইসলাম বিরোধী মনোভাবের কারণেই এই ওয়াসিম রিজভী কুরআনের আয়াত পরিবর্তনের রিট দায়ের করার সাহস পাচ্ছেন। তিনি বলেন, ওয়াসিম রিজভী অতীতেও তার বক্তব্যে ইসলাম সম্পর্কে বিভিন্ন বিতর্কের সৃষ্টি করেছেন।

তিনি প্রকাশ্যে কুরআনের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন। আমাদের বক্তব্য সুস্পষ্ট, পবিত্র কুরআন নিয়ে কাফের শিয়াদের এমন জঘন্য কর্মকাণ্ড কখনো বরদাশত করা হবে না। অনতিবিলম্বে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট থেকে এই রিট খারিজ করতে হবে এবং বিশ্বের কোটি মুসলমানের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এনে এই রিট দায়ের করার অপরাধে কুখ্যাত কাফের ওয়াসিম রিজভীকে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে।