যুবলীগের এক নেতাকে কোপাল আরেক নেতা, অবস্থা আশঙ্কাজনক

রাজনীতি

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে যুবলীগের দুই নেতার বিরোধের জেরে হামলার ঘটনার ঘটেছে। এতে শওকত আলী (২৭) নামে এক যুবলীগ নেতা গুরুতর আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) রাত ৯টার দিকে কুমিরা ইউনিয়নের ছোট কুমিরা ডেলিপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত শওকতকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলাউদ্দিন তালুকদার।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি (তদন্ত) সুমন বনিক বলেন, একটি ক্লাবে বসে আড্ডা দিচ্ছিলেন মওকত। সেখানে প্রতিপক্ষের লোকজন অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে। আহত শওকতকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে

এদিকে শওকতের ওপর হামলার জের ধরে যুবলীগে তার সমর্থিত গ্রুপ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ব্যারিকেড দিলে দেড় ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং অবরোধ তুলে নেয়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শওকত ও মামুন দুজন এক সময়ের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। দুজনের নামে ইয়াবা ও ডাকাতির একাধিক মামলা রয়েছে থানায়।

তারা দুজনেই স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে শওকত কয়েকজনের সঙ্গে স্থানীয় ক্লাবে বসেছিলেন। এ সময় যুবলীগ নেতা মামুন হঠাৎ দেশীয় ধারাল অস্ত্র নিয়ে ক্লাবে প্রবেশ করে শওকতকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। ধারালো অস্ত্রের কোপে শওকতের মাথায় মারাত্মক জখম হয়।