ক্রাইস্টচার্চে আবারো সেই মসজিদে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা

খেলাধুলা

ভয়ানক এক খবরে সকালে ঘুম ভাঙে দেশবাসীর। সে সময় নিউজিল্যান্ড সফর করছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সিরিজের শেষ টেস্ট খেলতে পুরো দল অবস্থান করছিল ক্রাইস্টচার্চে। পরদিনই হ্যাগলি ওভালে শেষ টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড দল।

ম্যাচের আগের দিন অনুশীলন ও সংবাদ সম্মেলন শেষ করে দলের সবাই টিম বাসে করে আল নূর মসজিদের উদ্দেশে রওনা দেন। বাংলাদেশ দলের বাস আল নূর মসজিদে পৌঁছানোর আগেই সেখানে ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের এক সন্ত্রাসী শুরু করেছিলেন হত্যাযজ্ঞ। সৌভাগ্যক্রমে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা একটু দেরি করে মসজিদে পৌঁছানোর জন্য প্রাণে রক্ষা পান।

তবে ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের সেই সন্ত্রাসীর হামলায় নিহত হন ৫১ জন মানুষ। যার মধ্যে ছিলেন নিউজিল্যান্ডে বসবাসরত পাঁচজন বাংলাদেশি। বিভীষিকাময় সে ঘটনার শোক এখনো পুরোপুরি কাটিয়ে ওঠেনি নিউজিল্যান্ড। ভয়ংকর এ হত্যাযজ্ঞ এখনো দাগ কেটে আছে অনেকের মনেই।

দুই বছর পর আবারো নিউজিল্যান্ড সফরে গেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। মূল সিরিজ শুরু করার আগে বাংলাদেশ দল কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ করেছে ক্রাইস্টচার্চে। সাত দিনের আইসোলেশন শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো অনুশীলন করেছে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। বিদেশ সফরে বাংলাদেশ দলের একটা রীতি প্রচলিত আছে।

জুমার দিন খেলা না থাকলে পুরো দল একসঙ্গে মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায় করেন। আজও অনুশীলন শেষে মসজিদে নামাজ আদায় করতে গেছেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। সেটাও সেই আল নূর মসজিদে। সে মসজিদের সামনে গিয়েই সেই ঘটনার স্মৃতিচারণ করেন বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। তারা ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করেছেন। যেখানে লিখা, এই হলো সেই মসজিদ এবং আজকেও শুক্রবার।
এমন এক সময় বাংলাদেশ দল নিউজিল্যান্ড সফর করছে যখন আবারো আল নূর মসজিদে হামলার হুমকি দেয়া হয়েছিল সপ্তাহ দুয়েক আগে। তবে স্বস্তির কথা হলো হুমকি দেয়া সেই দুই ব্যক্তিকে গতকাল বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ।